জবাবদিহিতার আওতায় আসছে যশোর বোর্ডের ৩১শ’ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান - যশোর নিউজ - Jessore News

Breaking

Post Top Ad


Post Top Ad

Responsive Ads Here

Sunday, November 3, 2019

জবাবদিহিতার আওতায় আসছে যশোর বোর্ডের ৩১শ’ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান


যশোর শিক্ষাবোর্ডের অধীন তিন হাজার এক শ’ স্কুল-কলেজ প্রধানকে সার্বক্ষণিক তদারকির আওতায় আনা হচ্ছে। সরকারীভাবে মোবাইল ফোনের সিম সরবরাহ করে তাদেরকে সার্বক্ষণিক নেটওয়ার্কের আওতায় আনা হচ্ছে। বেশিরভাগ প্রধান শিক্ষক ও অধ্যক্ষ শিক্ষা বোর্ডের মাধ্যমে সরকারীভাবে সরবরাহকৃত মোবাইল সিম ইতোমধ্যে সংগ্রহও করেছেন। শিক্ষাবোর্ডের স্কুল ও কলেজ বিভাগের কর্মকর্তারা বলছেন, প্রতিষ্ঠান প্রধানরা সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রাখেন না। এমনকি বোর্ড থেকে জরুরী প্রয়োজনে ফোন করা হলেও অনেকেই তা রিসিভ করেন না। আবার অনেক সময় মোবাইল বন্ধ থাকে। এসবের বাইরে অনেক প্রতিষ্ঠান প্রধান মাঝে মধ্যে অন্য সিম ব্যবহার করে থাকেন। এ কারণে বোর্ডের কাছে থাকা মোবাইল ফোন নম্বর বন্ধ পাওয়া যায়। ফলে, শিক্ষাবোর্ডের কাছে মোবাইল ফোন নম্বর থাকার পরও জরুরী কাজ মেটানো যাচ্ছে না। আবার, কোন প্রতিষ্ঠান সম্পর্কে বিভিন্ন ধরনের তথ্য জানতে ফাইল ঘেঁটে ইআইআইএন বের করতে হয়। তারপর ওই প্রতিষ্ঠান সম্পর্কে জানা যায়। এসব অবস্থা থেকে উত্তরণের জন্যে উদ্যোগ নিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রক্ষা করতে যশোর বোর্ডের ২ হাজার ৫শ’ ৩৭টি মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও ৫শ’ ৮৬টি কলেজের প্রধানকে মোবাইল সিম দেয়া হচ্ছে। গ্রামীণফোন এই সিম সরবরাহ করছে বিনামূল্যে। এই সিমের বিশেষ বৈশিষ্ট্য হচ্ছে, প্রতিটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ইধাইআইএনের সঙ্গে মিল রেখে নম্বর দেয়া হচ্ছে। প্রতিষ্ঠানের ছয়টি সংখ্যার ইআইআইএন-ই হচ্ছে মোবাইল ফোন নম্বর। এই ফোন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের নামে ব্যবহৃত হবে। প্রতিষ্ঠান প্রধান পরিবর্তন হলেও মোবাইল ফোন নম্বর অপরিবর্তিত থাকবে। কেবল তাই না, এই মোবাইল নম্বরটি সার্বক্ষণিক খোলা রাখার নির্দেশনা রয়েছে। যাতে শিক্ষাবোর্ড যেকোন সময় যোগাযোগ করতে পারে। একইসঙ্গে ওই মোবাইল নম্বর দেখে যেকোন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের অফিসিয়াল ফাইলের সর্বশেষ অবস্থা জানতে পারবেন বোর্ডের কর্মকর্তারা। যাতে কর্মকর্তাদের কাজ অনেকাংশে সহজ হবে বলে তারা মনে করছেন। সরকারীভাবে সরবরাহকৃত এই মোবাইল সিম সংগ্রহের জন্যে যশোর শিক্ষাবোর্ড থেকে লিখিতভাবে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। গত ১৫ অক্টোবরের মধ্যে এই সিম সংগ্রহ করার শেষ দিন ছিল। কিন্তু অনেক প্রতিষ্ঠান প্রধান নির্ধারিত সময়ের মধ্যে সিম সংগ্রহ করতে ব্যর্থ হয়েছেন। তাদেরকে সর্বশেষ সুযোগ দেয়া হয়েছে। শিক্ষাবোর্ডের নির্দেশ অনুযায়ী ২৯ অক্টোবর থেকে ১২ নবেম্বরের মধ্যে যশোর, মাগুরা, নড়াইল, কুষ্টিয়া, চুয়াডাঙ্গা, মেহেরপুর ও ঝিনাইদহের প্রতিষ্ঠান প্রধানদের গ্রামীণফোনের যশোর সেন্টার থেকে এবং খুলনা, সাতক্ষীরা ও বাগেরহাটের প্রতিষ্ঠান প্রধানদের গ্রামীণফোন খুলনা সেন্টার থেকে সিম সংগ্রহ করতে বলা হয়েছে।

Post Top Ad

Responsive Ads Here